Tips One Time https://www.tipsonetime.com/2022/09/daibetics-theke-bacar-upai.html

ডায়াবেটিস থেকে বাঁচার উপায় ২০২২ । ডায়াবেটিস হলে কি কি করা যাবে না


tipsonetime.com এ আপনাকে স্বাগোতম। ইদানিং ডায়াবেটিস বাংলাদেশ মহামারী আকার ধারণ করেছে,   জনসংখ্যা গবেষণা প্রতিষ্ঠানের তথ্য মতে দেশে ডায়াবেটিস এ আক্রান্ত প্রায় ১ কোটি ১০ লাখ,  তার মধ্যে ১৮- ৩৪ বয়সের হলো ২৬ লক্ষ,  বাকী ৮৪ লক্ষ হলে ৩৫ বছরের বেশি বয়সি।

এই তথ্য  থেকে কিছুটা ধারনা করতে পারছেন দেশে ডায়াবেটিস কিভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। 

ডায়াবেটিস থেকে বাঁচার উপায় ২০২২ । ডায়াবেটিস হলে কি কি করা যাবে না

আজকে আমাদের আলোচনার বিষয় হলো ডায়াবেটিস সমপর্কিত,  ডায়াবেটিসের যে বিষয় গুলো নিয়ে আলোচনা করব তা হলো 

☞ ডায়াবেটি কি 

☞ ডায়াবেটিস কত প্রকার ও কি কি

☞ ডায়াবেটিস কেন হয়

☞ ডায়াবেটিস রোগের লক্ষণ সমূহ

☞ ডায়াবেটিস রোগ হলে কি করতে হবে 

☞ ডায়াবেটিস রোগ হলে কি কি করা যাবে না 

☞ ডায়াবেটিস  এ যেসব খাবার খাওয়া যাবে না 

☞ সতর্কতা

আসুন আমরা এটা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করি, 

ডায়াবেটিস কি। ডায়াবেটিস থেকে বাঁচার উপায় 

আমরা যে খাবার গুলে খাই সেগুলো হতে  শর্করা উৎপাদন হয়ে তা দেহের জ্বালানি শক্তি হিসাবে কাজ করে ,  আর এটাকে বলে ইনসুলিন, যখন ইনসুলিন তৈরি হতে পারে না শরীর যখন সেই গুলো শোষণ করতে পারে না তখন সেই চিনি গুলো রক্তে গিয়ে জমে যায় এবং শুরু করে দেহের নানাবিধ সমস্যা এটাকেই ডায়াবেটিস বলে, 

ডায়াবেটিস কত প্রকার ও কি কি। ডায়াবেটিস থেকে বাঁচার উপায়

ডায়াবেটিস প্রায় চার রকমের রয়েছে তবে বাংলাদেশের দুই ধরনের ডায়াবেটিস বেশি দেখা যায় টাইপ ১  ও  টাইপ ২

➤ টাইপ-১ - ডায়াবেটিসে আক্রান্তদের মধ্যে যাদের শরীরের ইনসুলিন নষ্ট হয়ে যায় যাদেরকে ডাক্তারিভাবে ইনসুলিন না দিলে মারা যায় তাদেরকে টাইপ ওয়ান ডায়াবেটিস বলে ডায়াবেটিসে আক্রান্তদের মধ্যে 10 ভাগ রোগী টাইপ ১ এ আক্রান্ত

➤ টাইপ-২ - অন্যদিকে যাদের শরীরে ইনসুলিন আছে কিন্তু সেটা ঠিকভাবে কখনো কাজ করে কখনো কাজ করে না এবং নিয়মমাফিক অনুযায়ী চলাফেরা করতে হয়,  মাঝে মাঝে ইনসুলিন দেওয়া লাগে এটাকে বলে টাইপ ২ সাধারণত বাংলাদেশের টাইপ ২ বেশি দেখা যায়, 

আরো পরুনঃ কিডনির রোগ থেকে বাচার উপায় ২০২২

ডায়াবেটিস কেন হয়। ডায়াবেটিস থেকে বাঁচার উপায়

আমরা যখন খাবার খাই সেই খাদ্য থেকে চিনির পরিমাণ শোষিত না হয়ে ইনসুলিন যখন সেটা শোষন করতে পারেনা তখন সেটা মিশে যায় রক্তের সাথে আর এরপরে শুরু হয় বিরূপ প্রতিক্রিয়া এই ইনসুলিন এর কার্যক্ষমতা ক্রাশ পাওয়া বা একেবারে নষ্ট হওয়ার কারণে ডায়াবেটিস হয়, 

ডায়াবেটিস রোগের লক্ষণ সমূহ । ডায়াবেটিস থেকে বাঁচার উপায়

➤ পানির পিপাসা - সাধারণত আমরা সকলের পানি খেয়ে থাকি আমাদের সকলেরই পানির পিপাসা হয়ে থাকে তবে ডায়াবেটিসের আক্রান্ত রোগীদের ক্ষেত্রে প্রথমের দিকের লক্ষণ হল অতিরিক্ত পিপাসা পাওয়া, 

➤ ঘন ঘন প্রস্রাব -  ডায়াবেটিস রোগে কেউ আক্রান্ত হলে শুরুর দিকে তিনি আরো একটি বিষয় দেখতে পাবেন সেটি হল ঘন ঘন প্রস্রাব হওয়া

➤ অতিরিক্ত খিদে  - ডায়াবেটিস এ আক্রান্ত হলে অতিরিক্ত খিদে পায়  কারণ তাদের খাবারের যেই শর্করা গুলো আছে  সেগুলো শরীর শোষণ করতে পারে না এর ফলে সেই খাবার এর শর্করা গুলো রাক্তে গিয়ে জমে যায় এর কারণে তাদের ঘন ঘন খিদে পায়। 

➤ ওজন কমে যাওয়া - ডায়াবেটিস রোগীদের অন্যতম একটি লক্ষণ হল ওজন কমে যাওয়া, যখন ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার কিছুদিন পার হয় তখন এই ওজন কমে যাওয়ার সমস্যা দেখা দেয়

➤ ঝাপসা দেখা  -  ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত হলে চোখে ঝাপসা দেখে সাধারণত এর অন্যতম কারণ হলো রক্তের চিনির পরিমাণ বেশি হয়ে যাওয়া।  

➤ ক্লান্তি  -  ডায়াবেটিস এ আক্রান্ত হলে রোগী কোন কিছু না করেও ক্লান্তি বোধ করেন যেন তুমি প্রচএর পরিশ্রম করেছেন এর কারণে তার মাঝেই সবসময় এক রকমের অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা থাকেন। 

➤ মিষ্টির প্রতি লোভ -  মিষ্টির পপ্রতি লোভ  আমাদের সকলেরই আছে, তবে ডায়াবেটিস রোগীদের ক্ষেত্রে এটা বহুগুনে বেড়ে যায় ডায়াবেটিস রোগীরামিষৃটি খেলে তাদের মধ্যে আনন্দ অনুভূত হয় হঠাৎ করে তারা সামরিক শক্তি পায় তবে এটা ডায়াবেটিসের জন্য খুবই ক্ষতিকর। 

আরো পরুনঃ মধু খাওয়ার নিয়ম ও সময়। মধু খাওয়ার উপকারিতা ২০২২

ডায়াবেটিস রোগ হলে কি করতে হবে। ডায়াবেটিস থেকে বাঁচার উপায়

কারো যদি ডায়াবেটিস রোগ হয় তাকে তার জীবন পুরোপুরি রুটিনের মধ্যে নিয়ে আসতে হবে এবং নিয়ম অনুযায়ী চলাফেরা করতে হবে অন্যথায় তার সমস্যা করতে পারে, ডায়াবেটিস রোগ হলে যে কাজগুলো নিয়মিত করতে হবে তা হলো...

➤ হাটা -  ডায়াবেটিস রোগীদের প্রতিদিন সকালে খালি পেটে কমপক্ষে ৩০ মিনিট হাটাহাটি করতে হবে সমতল জায়গায় যেহেতু বেশিরভাগ ডায়াবেটিস রোগেই বয়স্ক হয়ে থাকে তাই তারা ব্যায়াম করতে পারে না তাদের জন্য এই হাঁটাহাঁটিটা খুবই উপকার দিবে ।

➤ কায়িক শ্রম -  ডায়াবেটিস রোগীদের মধ্যে যাদের বয়স কম তাদের অবশ্যই কায়িক শ্রম করতে হবে এতে করে তাদের ডায়াবেটিস অনেকাংশে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে । 

➤ খেলাধুলা -  যাদের সামর্থ্য আছে তারা চেষ্টা করুন খেলাধুলায় সংযুক্ত হওয়ার এতে করে যেমন আপনার পরিশ্রমের কাজটি হয়ে যাবে তেমনি আপনার মন ও সতেজ থাকবে। 

ডায়াবেটিস রোগ হলে কি কি করা যাবে না। ডায়াবেটিস থেকে বাঁচার উপায়

ডায়াবেটিস হলে অনেকগুলো কাজ আপনি করতে পারবেন না করলে শরীরের ক্ষতি হবে যেমন....

➤অতিরিক্ত ঘুম -  ডায়াবেটিস রোগীদের অবশ্যই অতিরিক্ত ঘুমানো পরিহার করা উচিত এতে স্বাস্থ্যের আরো অবনতি হচ্ছে এবং নানাবিধ রোগ তাদের আকড়ে ধরছে,  তাই নিয়ম মাফিক ঘুমানো উচিত এবং অন্যান্য সময় হালকা পাতলা কাজ ও ব্যায়াম করা উচিত। 

➤  ওজনের কাজ  - যারা ডায়াবেটিস আক্রান্ত  হয়েও কাজ করেন তারা ভারী ওজন করবেন না, এতে করে আপনি হঠাৎ করে ডায়াবেটিসের মাত্রা কমে যেতে পারে এবং আপনি দুর্ঘটনার শিকার হতে পারেন, এই ধরনের পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্য হাতের কাছে সব সময় মিষ্টি জাতীয় চকলেট বা কিছু ওষদ রাখুন। 

➤ ঝুঁকি -   ঝুঁকি  নিবেন না,  ঝুকি নিতে হয় এই ধরনের কাজগুলো করবেন না কেননা ডায়াবেটিস রোগীরা যদি কোন ধরনের রোগে আক্রান্ত হয় বা শরীরের কোথাও কেটে বা ফেটে যায় সেটা সহজে নিরাময় হয় না তাই ডায়াবেটিস রোগীদের কখনো ঝুঁকি নিয়ে কোন কাজ করা যাবে না 

আরো পরুনঃ স্ত্রী সহবাসের ইসলামিক নিয়ম || ইসলাম কী বলে

ডায়াবেটিস  হলে যেসব খাবার খাওয়া যাবে না। ডায়াবেটিস থেকে বাঁচার উপায়

ডায়াবেটিস হলে খাদ্য নিয়ন্ত্রণ খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে পড়ে, কেননা আপনার ডায়াবেটিসের মাত্রা সম্পূর্ণ নির্ভর করে আপনার খাদ্যের উপর,  ডায়াবেটিস রোগের সবসময় সাবধান থাকতে হয় এবং নিজেকে সামলাতে হয়, যেসব খাবারগুলো নিয়ন্ত্রণ বা বর্জন করা উচিত তা হল

➤ মিষ্টি -  ডায়াবেটিস রোগীদের মিষ্টি জাতীয় খাবার খুবই পছন্দনীয় হয়ে ওঠে  তবে বিশেষজ্ঞরা মিষ্টি জাতীয় খাবার নিয়ন্ত্রণ করার জন্য পরামর্শ দিয়ে থাকেন, তবে চিকিৎসকরা বলেন পরিমিত পরিমাণে চিনি খাওয়ার জন্য তবে সেটা যাতে অতিরিক্ত না হয় সেদিকে বিশেষভাবে খেয়াল রাখতে হবে। 

➤ অতিরিক্ত লবণ - অতিরিক্ত বা কাঁচা লবন খাওয়া যাবে না, ডায়াবেটিস রোগীদের মধ্যে অন্যতম একটি প্রচলন হল অতিরিক্ত ও কাঁচা লবণ খাওয়া,  কাঁচা বা অতিরিক্ত লবণ ডায়াবেটিস রোগীদের কখনো খাওয়া যাবে না, এটি মেটাবলিজম বৃদ্ধি করতপ পারে। 

➤ মসলাযুক্ত খাবার -  মসলাযুক্ত খাবার পরিহার করা উচিত মসলা যুক্ত খাবার অতিরিক্ত খাওয়ার ফলে নানাবিধ সমস্যা ও হজমে তারতম্য দেখা দিতে পারে এবং এর ফলে ডায়াবেটিসের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যেতে পারে তাই মসলাযুক্ত খাবার পরিহার করা। 

➤ ধূমপান - ডায়াবেটিস রোগীরা বেশিরভাগ সময় বিষন্নথায়  থাকেন,  এর কারণে অনেকেই ধূমপান করে থাকেন এটা ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর ধূমপান এমনিতেও স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর, 

➤ নেশা - নেশা জাতীয় দ্রব্য খাওয়া যাবেনা একটি ডায়াবেটিস রোগীদের শরীরে মারাত্মক প্রভাব ফেলে নেশা জাতীয় দ্রব্য রক্তের সাথে মিশে গিয়ে রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ বাড়িয়ে দিতে পারে এবং হতে পারে মৃত্যু তাই ডায়াবেটিস রোগীদেরকে নেশা ও নেশা জাতীয় দ্রব্য পান সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করতে হবে। 

আরো পরুনঃ মেদ ভুড়ি কমানোর সহজ উপায় । পেটের মেদ কমানোর উপায় 

সতর্কতা। ডায়াবেটিস থেকে বাঁচার উপায় 

ডায়াবেটিস রোগীদের সব সময় সতর্ক থাকতে হবে ডায়াবেটিস রোগী বুঝতে পারেন যে কখন তার ডায়াবেটিস এর পরিমাণ কমে যাচ্ছে বা বেড়ে যাচ্ছে, সে অনুযায়ী  পদক্ষেপ নিতে হবে অন্যথায় মহা বিপদ ঘটতে পারে তাই হাতের কাছে সব সময় ডায়াবেটিসের ওষুধ রাখুন। 

নিয়মিত ডায়াবেটিস পরীক্ষা করুন। ডাক্তারের পরামর্শ ব্যতীত কোনরকম ওষুধ সেবন করবেন না . ধন্যবাদ

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

Thank you, for your Opinion

What is Tips One Time